দুর্নীতি দমন কমিশন কে -কাজী নজমুল হুদার খোলা চিঠি

0
958

 

বরাবর
উপ পরিচালক
দুর্নীতি দমন কমিশন
সমম্বিত জেলা কার্যালয়, সিলেট।
বিষয় : মি.কৃষ্ণ চন্দ্র হোড়, অতিরিক্ত পরিচালক, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, সিলেট অঞ্চল এর সীমাহীন দূর্নীতি,স্বজনপ্রীতি , দুর্ব্যবহার, সাম্প্রদায়িকতা ও দম্ভোক্তি বিষয়ে অবহিত ও ব্যবস্তা গ্রহন প্রসজ্ঞে।
জনাব
আপনার সদয় জ্ঞাতার্থে ও প্রয়োজনীয় ব্যবস্তা গ্রহনের জন্য জানানো যাচ্ছে যে, মি. কৃষ্ণ চন্দ্র হোড়, অতিরিক্ত পরিচালক, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, সিলেট অঞ্চল যোগদানের পর হতে সরকারের বিভিন্ন পর্যায়ের উধর্বতন ব্যক্তিবর্গের নাম ব্যবহার করে বিশেষ করে কৃষি মন্তনালয়ের অতিরিক্ত সচিব জনাব মোশারফ হোসেন ও ডিএই এর পরিচালক সরেজমিন উইং জনাব চৈতন্য কুমার দাস এর সাথে তিনির নিবিড় সমর্পক রয়েছে বলে এই অঞ্চলের কর্মকর্তা কর্মচারীদের বদলী / হয়রানীমূলক বদলী, ধর্মীয় স্বজনপ্রীতি, ক্ষমতার অপব্যবহার, বিধি পরিপন্থী পদবী পরিবর্তন, টাইমস্কেল মঞ্জুরীসহ নানান ধরনের কাজে রেইট প্রস্তুত করে লক্ষ্য লক্ষ টাকা আদায় করে নিয়েছেন। নিম্নে আমাদের জানা কয়েকটি তথ্য আপনাকে অবহিত করলাম। ইতিমধ্যে আপনার দপ্ত্ররের যথাযথ তৎপরতায় ঘুষ দূর্নীতি দমনে সিলেট অঞ্চলে যথেষ্ট অবদান রেখেছে বলে আমরা বিশ্বাস করি। যথাযথ তদন্ত করলে আমাদের জানার বাহিরে অনেক তথ্য বেরিয়ে আসবে বলে মনে করি।
কয়েকটি তথ্য নিম্নরূপ :

১। সিলেট অঞ্চলে শস্যের নিবিড়তা বৃদ্বিকরণ প্রকল্পের ২০১৬ -১৭ মৌসুমের ৫২০ ব্যাচ প্রশিক্ষণ থেকে চাপ প্রয়োগ করে নিজের ভাতার অতিরিক্ত হিসেবে ব্যাচ প্রতি ২০০০/-টাকা হারে ১০৪০০০০/-টাকা হাতিয়ে নেন। প্রতিটি প্রকল্পের প্রশিক্ষণ থেকে নিজের ভাতার অতিরিক্ত হিসেবে ব্যাচ প্রতি ২০০০/- টাকা হার নির্ধারণ করে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেন। এসব টাকা উপজেলা কৃষি অফিসার ও উপপরিচালকগন নিজ দায়িত্বে উনার কাছে পৌছাতে হয়। এমনকি প্রশিক্ষণে ক্লাস না নিয়েও তার দপ্তরে বসে ভাতা গ্রহন করেন। এর ব্যতিক্রম ঘটলে পরিনাম ভয়াবহ হবে বলে অধঃস্তন কর্মকর্তাদের হুমকি দেন। ইতি মধ্যে একজন নবাগত উপপরিচালক দ্বিমত পোষন করায় কৈফিয়ত তলব করে হয়রানি করেন।
২। তিনি পেনশনভোগী কর্মকর্তাদের জন্য ১০০০০০/-ও কর্মচারীদের জন্য ৫০০০০/- টাকা রেইট নির্ধারণ করে রেখেছেন।
৩।জনাব আনোয়ার হোসেন অপু নামক একজন এসএএস এর নিকট থেকে ৭০০০০/- টাকার বিনিময়ে শাস্তিমূলক হেন্ডআপ ছুটি মঞ্জুর করেন।
৪। হবিগঞ্জ জেলার বানিয়াচং উপজেলা হতে দুই জন এবং আজমিরীগঞ্জ উপজেলা থে এক জন এসএএও বদলী করে ৫০০০০/- টাকা হারে ১৫০০০০/- উৎকুচ গ্রহন করেন।ক্ষমতার অপব্যবহার করে জনাব জাহাঙ্গীর আলম,ইউডি কে সিলেট জেলার গোলাপগঞ্জ উপজেলা হতে ৭০০০০ টাকার বিনিময়ে সিলেট জেলা অফিসে পদ বাহির্ভুত অবস্হায় পদায়ন করেন।
৬। সিলেট জেলার পোঃসুরমা উপজেলা হতে মি. সজল কান্তি দাস কে পদ পরিবর্তন করে এটিআই,খাদিমনগরে বদলী করে ১০০০০০/ টাকা ঘুষ গ্রহন করেন।
৭।তিনি প্রতি নিয়ত পূর্বের কর্মস্হল সুনামগঞ্জ ও হবিগঞ্জ জেলার বিভিন্ন উপজেলার পূর্ব পরিচিতদের মাধ্যমে হুমকি দিয়ে বিভিন্ন ধরনের উপঢৌকন গ্রহণ করেন।ব্লক ভিজিটকালে বিরুপ মন্তব্যের মাধ্যমে চাপ প্রয়োগ করে বেক্তিগত সুবিধা আদায় করেন।।
৮।সম্পূ্র্ন বিধিবহির্ভূত তিনির পূর্বের কর্মস্হল হবিগঞ্জ জেলার দুই জন এসএএও যথাক্রমে মি.ব্রজবাসী দেবনাথ ও মি.নিধান দেবনাথ কে এস এপিপিও পদে পাদায়ন করেন ৪০০০০০/-টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন।
৯।মি. বকুল চন্দ্র শীল,অফিস সহকারীকে ৫০০০০/- টাকার বিনিময়ে কোম্পানীগঞ্জ, সিলেট থেকে বদলী করেন।
১০। সিলেট অঞ্চল থেকে কোন এসএএও বা কর্মচারী বদলীর আবেদন ঢাকায় অগ্রগামী করতে ১০০০০/-টাকা রেট নির্ধারণ করে লক্ষ লক্ষ টাকা আদায় করেছেন।
১১। মাত্রাতিরিক্ত গাড়ীর জালানি, ভ্রমণ ভাতা ও মেরামত খরচের বিল দাখিল করে সরকারি কোষাগার থেকে টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন।অথচ উপজেলা ভ্রমণ কালে তিনি বিধি বাহিভ্রুতভাবে গাড়ীর তেলের খচর আদায় করেছেন।
১২। তিনি তার দপ্তরের প্রধান সহকারী সাথে কিংবা কোন কর্মচারীর সাথে যোগাসাজেসে ছাড়াই এসব কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছেন বলে তার দপ্তর সূত্রে জানা যায়।
১৩। ইতিমধ্যে সুনামগঞ্জ জেলার তিন জন কর্মচারীসহ অঞ্চলের অনেক কর্মচারীকে পদোন্নতি দিবেন বলে লক্ষ লক্ষ টাকা অগ্রিম গ্রহন করে পদোন্নতি না দিয়ে আগামী মার্চ/১৭ খ্রি.প্রথম সপ্তাহে উক্ত কর্মকর্তা পেনশনে যাচ্ছেন।
অতএব বিনিত প্রর্থনা যে উক্ত দুনীতিবাজ কর্মকর্তার বিরোদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করে সরকারের দূনীতি বিরোধী কার্যক্রম বেগবান করে সিলেট অঞ্চলের কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের ঐতিহ্য সমুন্নত রাখতে আপনারা সদয় মর্জি হয়।

নিবেদক
সিলেট অঞ্চলে কর্মকর্তা/কর্মচারীদের পক্ষে।
(কাজী নাজমুল হুদা)
অফিস সহকারী
কোম্পানিগঞ্জ,সিলেট।

সদয় ঞ্জাতার্থে অনুলিপিঃ
১। সচিব,কৃষি মন্ত্রনালিয়,বাংলাদেশ সচিবালয়,ঢাকা।
২।মহাপরিচালক,কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর খামারবাড়ি,ঢাকা।
৩।বিভাগীয় কমিশনার,সিলেট বিভাগ,সিলেট।
৪।অধিনায়ক,র‍্যাব ৯,সিলেট।
৫।উপপরিচালক সম্প্রসারণ অধিদপ্তর,সিলেট/মৌলভীবাজার/সুনামগঞ্জ/হবিগঞ্জ।
৬।সম্পাদক দৈনিক প্রথম আলো/যুগান্তর/সিলেটের ডাক/শ্যমল সিলেট।

LEAVE A REPLY

three × three =